Breaking News

বিধি মেনেই স্মরণ । দুরত্ব রেখেই মনে করা হলো বিজন সেতুর সপ্তদশ দধীচিদের

অতীতের কথা আজও পশ্চিমবঙ্গের অনেক মানুষের মন থেকেই সরে নি। ১৯৮২ সালে ৩০শে এপ্রিল, সিপিএম সরকারের শাসনকালে ১৭জন আনন্দমার্গী সন্ন‍্যাসীকে বিজন সেতুর উপর জীবন্ত জ্বালিয়ে হত‍্যা করা হয়েছিল।এই হত‍্যা কান্ডের পেছনে যারা জড়িত তাদের আজও কোন শাস্তি হয় নি। এই ঘটনার সমস্ত দায় বর্তানো হয়েছিল তৎকালীন সরকারের উপর। যদিও সিপিএম এর থেকে এই দায় অস্বীকারই করা হয় এখনও।
এই আনন্দমার্গীদের আত্মার শান্তির উদ্দেশ্য প্রতি বছরই বিজন সেতুর উপর বিজনসেতুর উপর শ্রদ্ধাঞ্জলি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

করোণা সংক্রান্ত পরিস্থিতি ও লকডাউনের কারণে এবছর বিজন সেতুতে জনসমাগম করা সম্ভব হয়ে ওঠিনি। তবুও করোণা সংক্রান্ত পরিস্থিতি ও লকডাউনের কারণে এবছর বিজন সেতুতে জনসমাগম করা সম্ভব নয়। তাই ওই দিন সকাল ৯ টায় আনন্দমার্গ প্রচারক সংঘের কেন্দ্রীয় কমিটির পক্ষ থেকে লকডাউনের বিধি নিষেধ মেনে বিজন সেতুতে উপস্থিত হয়ে সেই ১৭জন সন্ন‍্যাসীর উদ্দেশ্যে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানিয়েছেন।
ঐদিন উপস্থিত ছিলেন আচার্য তন্ময়ানন্দ অবধূত, আচার্য ভবেশানন্দ অবধুত, আচার্য সুতীর্থানন্দ অবধূত, আচার্য দিব্যচেতনানন্দ অবধূত ও অবধুতিকা আনন্দ করুণা আচার্যা রা কবিতা পাঠ করে পুষ্পাঞ্জলি দিয়ে শ্রদ্ধার্ঘ্য জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *