Breaking News

উদ্বোধনী ম্যাচের দিনই বদলে দেয়া হলো স্টেডিয়ামের নাম,সর্দার প্যাটেল স্টেডিয়ামের নাম বদলে রাখা হলো নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়াম

ভারত বনাম ইংল্যান্ড তৃতীয় টেস্ট তথা পিঙ্ক বল টেস্ট ম্যাচের মধ্যে দিয়েই মোতেরায় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের ঢাকে কাঠি পড়ছে। ১ লক্ষ ১০ হাজার দর্শকাসন বিশিষ্ট নব কলেবরে মোতেরাকে দেখে ইতিমধ্যেই মোহিত হয়েছে ক্রিকেটবিশ্ব।

চলতি ভারত-ইংল্যান্ড সিরিজের তৃতীয় টেস্ট শুরুর ঠিক আগে জানিয়ে দেওয়া হলো বিশ্বের সবথেকে বড় আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামের নাম এখন থেকে নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়াম। ১ লক্ষ ১০ হাজার দর্শকাসন বিশিষ্ট মোতেরার নবমির্মিত স্টেডিয়াম এবার থেকে পরিচিত হবে নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়াম নামে। উদ্বোধনী ম্যাচের দিনই বদলে দেয়া হলো স্টেডিয়ামের নাম।

প্রায় সোয়া লাখ ধারণক্ষমতাসম্পন্ন স্টেডিয়ামটির নাম ছিল সর্দার প্যাটেল স্টেডিয়াম। আমেদাবাদের নভরংপুরায় মোতেরা স্টেডিয়ামের উদ্বোধন হয় ১৯৮৩ সালের ১২ নভেম্বর। নাম ছিল সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল স্টেডিয়াম। বুধবার রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ উদ্বোধন করেন মোতেরার নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামের। যদিও ক্রিকেট স্টেডিয়াম-সহ গোটা স্পোর্টস এনক্লেভের নামকরণ করা হয় সর্দার প্যাটেলের নামে।

গত বছর নরেন্দ্র মোদী ও ডোনাল্ড ট্রাম্প এই স্টেডিয়ামের উদ্বোধন করেন। আজ সেখানে প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচের আগে হলো ভূমিপূজন। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। সেখানেই অমিত শাহ বলেন, এই স্টেডিয়ামের নাম এখন থেকে নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়াম। বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় সশরীরে হাজির থাকতে না পারলেও সোস্যাল মিডিয়ায় উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন বিশ্বের বৃহত্তম ক্রিকেট স্টেডিয়ামের অনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু নিয়ে।

এছাড়া ইন্ডোরেও থাকছে ৬টি পিচ এবং স্টেডিয়ামের চার-চারটি ড্রেসিংরুম। নবনির্মিত মোতেরাকে নিয়ে বলতে গিয়ে বিরাট কোহলি পিবক বল টেস্টের আগে জানিয়েছেন, ‘আমরা গর্বিত যে বিশ্বের সর্ববৃহৎ ক্রিকেট স্টেডিয়াম আমাদের দেশে। দুর্দান্ত পরিকাঠামো আর আমরা ভীষণভাবে উত্তেজিত মাঠে নামার জন্য।’ কোহলি আরও বলেন, ‘দর্শক সমাগম পার্থক্য গড়ে দেবে। আমরা যখন বিদেশের মাঠে খেলি তখন আমরা চাপ অনুভব করি। আশা করছি আমরা মোতেরায় প্রবল জনসমর্থন পাব।’

স্বরাষ্টমন্ত্রী অমিত শাহ বলেন, ‘নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়াম-সহ সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল স্পোর্টস এনক্লেভের পাশাপাশি নারানপুরেও একটি স্পোর্টস কমপ্লেক্স গড়ে তোলা হবে। তিনিটি জায়গাই আন্তর্জাতিক পর্যায়ের খেলাধুলো আয়োজন করতে পারবে। আমদাবাদকে পরিচিত হবে স্পোর্টস সিটি হিসেবে।’

স্টেডিয়ামের উদ্বোধন করে রাষ্ট্রপতি কোবিন্দ বলেন, ‘গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী থাকার সময় এই স্টেডিয়াম তৈরির পরিকল্পনা করেন নরেন্দ্র মোদী। সেই সময় তিনি গুজরাত ক্রিকেট সংস্থার সভাপতিও ছিলেন।’

৬ মাসের মধ্যে এখানে এশিয়াড, কমনওয়েলথ গেমস আয়োজন করতে আমেদাবাদ প্রস্তুত। নয়া কলেবরে মোতেরাকে দেখে প্রাক্তন ইংরেজ তারকা কেভিন পিটারসন এতটাই অনুপ্রাণিত যে মোতেরাকে ওল্ড ট্র্যাফোর্ডের সঙ্গে তুলনা করেছেন কেপি। ম্যাঞ্চেস্টার ইউনাইটেড ফুটবল ক্লাবের হোমগ্রাউন্ড অনুরাগীদের কাছে পরিচিত ‘থিয়েটার অফ ড্রিমস’ বা ‘স্বপ্নের রঙ্গমঞ্চ’ হিসেবে। মোতেরাকেও সেই নামেই সম্বোধন করেছেন কেপি।